প্রচ্ছদ > জাতীয় >

গোপালগঞ্জ বশেমুরবিপ্রবিতে শিক্ষক সমিতির নির্বাচন : আশিকুজ্জামান সভাপতি ঈশিতা সাধারণ সম্পাদক

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি : | 25 July, 2018
img

গোপালগঞ্জে অবস্থিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বশেমুরবিপ্রবি) শিক্ষক সমিতির নির্বাচনে বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী শিক্ষক জোট পূর্ণ প্যানেলে জয় লাভ করেছে। সভাপতি পদে ইংরেজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মোহাম্মদ আশিকুজ্জামান ভূঁইয়া এবং সাধারণ সম্পাদক পদে ব্যবস্থাপনা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ঈশিতা রায় নির্বাচিত হয়েছেন।
নির্বাচনে বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী শিক্ষক জোট প্যানেলের সভাপতি প্রার্থী মোহাম্মদ আশিকুজ্জামান ভূঁইয়া ১০৮ ভোট পেয়ে সভাপতি নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দী বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনার শিক্ষক ঐক্য প্যানেলের সভাপতি প্রার্থী প্রফেসর ড. মো: শাহজাহান ৬২ ভোট পান।
শিক্ষক সমিতির নির্বাচিত অন্যান্য সদস্যরা হলেন সহ-সভাপতি পদে ফার্মেসী বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আবুল বাশার রিপন খলিফা, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ছায়েদা মাহমুদা, কোষাধ্যক্ষ পদে কৃষি বিভাগের প্রভাষক এইচ এম. আনিসুজ্জামান, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক পদে মার্কেটিং বিভাগের প্রভাষক মো: হাফিজুর রহমান।
নির্বাহী সদস্য পদে বিজয়ীরা হলেন, অর্থনীতি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মাহফুজা আক্তার, বাংলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মুমতাহানা মৌ, এসিসিই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. মো: কামরুজ্জামান, সিএসই বিভাগের প্রভাষক মো: মনোয়ার হোসেন, পরিসংখ্যান বিভাগের প্রভাষক মো: মাইদুল হোসেন, ইইই বিভাগের প্রভাষক পান্থ প্রতিম সরকার, ফার্মেসী বিভাগের প্রভাষক ড. মো: তরিকুল ইসলাম, মনোবিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক মাসুমা পারভীন ও ফাইন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিভাগের প্রভাষক তন্ময় বর্ম্মন।
মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত একটানা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রিয় গ্রন্থাগার একুশে ফেব্রুয়ারী লাইব্রেরী ভবনে স্থাপিত ভোট কেন্দ্রে নির্বাচন সুষ্ঠ ভাবে সম্পন্ন হয়। নির্বাচনে মোট ১৭৫ জন ভোটার গোপন ব্যালটের মাধ্যমে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন।
উক্ত নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের দায়িত্ব পালন করেন আইন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মানসুরা খানম এবং কমিশনারের দায়িত্ব পালন করেন ইইই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক জপতোষ মন্ডল ও ফার্মেসী বিভাগের সহকারী অধ্যাপক শামস আরা খান।